কিউইদের প্রথম সাফল্য

আপনি আপনার ঘড়কে ফুলে ফুলে সাঁজাতে চাচ্ছেন! শুধুমাত্র গোলাপ দিয়ে কি খুব সুন্দর করে সাজানো সম্ভব! মনে হয় না, সাথে অন্যান্য কিছু ফুলেরও প্রয়োজন পরে। রজনীগন্ধা, গাঁদা ফুল, সবুজ পাতা সবকিছু মিলিয়েই একটা সুন্দর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। আকর্ষণের কেন্দ্র বিন্দু অবশ্য গোলাপই থাকে। কিন্তু অন্যান্য ফুলগুলোর গুরুত্বও কম না। ক্রিকেট টুর্নামেন্ট এর বেলায়ও এরকম! শিরোপা নেয়ার মত গোলাপ থাকে কয়েকটা আর বাদ বাকি দলগুলো যেন সৌন্দর্য বর্ধনের কাজ করে থাকে। তেমনই একটি দল নিউজিল্যান্ড! প্রতিটি টুর্নামেন্টেই আশা জাগানিয়া পারফর্ম করে কিন্তু আকর্ষণের মূল জায়গাটায় আর পৌছাতে পারে না। অবশেষে ২০০০ সালে এল সেই মহেন্দ্রক্ষন যখন সব গোলাপকে পিছনে ফেলে আকর্ষণের কেন্দ্র বিন্দুতে রইল গাঁদা ফুলের মালা।
১৫ই অক্টোবর ২০০০, নাইরোবিতে আইসিসি নক আউট টুর্নামেন্ট এর ফাইনালে নিউজিল্যান্ড। প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ভারত। দিনটাই মনে হয় সাথে ছিল কিউইদের। টসে জয় পেলেন কিউই অধিনায়ক ফ্লেমিং। টসে জিতে ফিল্ডিঙের সিদ্ধান্ত কিউই অধিনায়কের। ভারতের অধিনায়ক গাঙ্গুলি আর লিটল মাস্টার এর শচিনের উদ্বোধনী জুটির খেলা দেখে মনে হচ্ছিল কিউই অধিনায়কের ফিল্ডিঙের সিদ্ধান্ত মনে হয় বুমেরাং হয়ে ফিরে আসছে। উদ্বোধনী জুটিতে ১৪১ রান! শচিন ৬৯ রানে রান আউট না হলে রানের সংখ্যা আরও বাড়তে পারত! অপরপ্রান্তে সৌরভের সেঞ্চুরি। শেষের দিকে দ্রুত কিছু উইকেট তুলে নিয়ে রানের গতি কিছুটা কমাতে সক্ষম হয়েছিল কিউইরা। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ভারতের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২৬৪ রান।
২৬৫ রান তাড়া করতে নেমে প্রথমেই হোঁচট খায় নিউজিল্যান্ড। দ্বিতীয় ওভারে ৬ রানেই প্রথম উইকেটের পতন। ৩৭ রানের মধ্যে দলিয় অধিনায়কের বিদায় কিউইদের দুশ্চিন্তায় ফেলে দেয়। আবারো কি স্বপ্নের অপমৃত্যু ঘটতে যাচ্ছে কিউইদের! কিউইদের ত্রাণকর্তা হিসাবে আবির্ভূত হলেন ক্রিস কার্ন্স। টোস এর ৩১, ম্যাকমিলান ১৫ এবং হ্যারিস এর ৪৫ রানের সাথে নিজের শতক পূর্ণ করলেন ক্রিস। দুই বল বাকি থাকতে দলকে পৌঁছে দিলেন জয়ের বন্দরে। রচিত হল নতুন এক ইতিহাস। সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য টুর্নামেন্টে অংশ নেয়ার অপবাদ মুছে কিউইদের নিয়ে এলেন আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে। অপরাজিত ১০২ রানের বদৌলতে ম্যাচ সেরার পুরুস্কার তুলে নেন ক্রিস কার্ন্স।
১৬ বছর আগের আজকের এই দিনেই এসেছিল কিউইদের প্রথম কোন টুর্নামেন্ট জয়ের সাফল্য। অভিনন্দন নিউজিল্যান্ড।
লেখকঃ প্রবাসী পাঠক

ম্যানিয়াক্স ডেস্ক
ক্রিকেট ভালোবাসি, কেননা বাংলাদেশকে ভালোবাসি।

Leave a Reply