ম্যাচ প্রিভিউঃ ‘বরিশাল বুলস’ বনাম ‘রাজশাহী কিংস’

বিপিএল সিজন-৪
ম্যাচ #১০ঃ
‘বরিশাল বুলস’ 🆚 ‘রাজশাহী কিংস’
সময়ঃ দুপুর ২ টা
সরাসরিঃ চ্যানেল নাইন
ভেন্যুঃ শেরেবাংলা নগর ক্রিকেট স্টেডিয়াম, মিরপুর
 
টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত বরিশাল এবং রাজশাহী দুই দলই জমজ ভাইয়ের মতন এগুচ্ছে। দুই দলই দুইটিম্যাচ খেলে একটি করে জয় এবং পরাজয়। উভয়েরই রয়েছে শেষ ম্যাচে জয়ের অভিজ্ঞতা। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই উজ্জীবিত দল দুটি মুখোমুখি হতে যাচ্ছে শেরেবাংলা নগর ক্রিকেট স্টেডিয়াম, মিরপুরে। দুই দলই জয়ের ধারা অব্যাহত রেখে পয়েন্ট টেবিলে এগিয়ে থাকতে চাইবে। এখন পর্যন্ত ফলাফলে যতই মিল থাকুক কাগজে কলমে দুই দলের শক্তি মোটেই এক না।
 
টুর্নামেন্টে সবচেয়ে ব্যাল্যান্স দল ভাবা হচ্ছে রাজশাহীকে। ব্যাটসম্যান, বোলার এবং অলরাউন্ডার কি নেই দলে? তবে এদের সঠিক সময়ে ব্যবহার করানোটাও জরুরী। এই যেমন প্রথম ম্যাচে মিরাজকে ১০ নম্বরে নামিয়ে চমক উপহার দিলো, ম্যাচ হেরে নিজেরাও চামক নিলো! ওপেনিং ব্যাটিং নিয়ে এখনও কনফিউশন রয়েছে অর্থাৎ রাজশাহীর ছোটোখাটো টিউনিং বাকি। তবে টিমে একবার হারমোনি হয়ে গেলে এইদল নিঃসন্দেহে ফাইনাল জয়ের সুর তুলবে। প্রথম ম্যাচে ৬৪ রান করা পকেট ডিনামাইট মমিনুল হক, ভ্যাম্পায়ার সাব্বির এবং ওমর আকমল শুরুটা করে দিতে পারলে রাজশাহী নিয়মিত বড় রান করবে। মাঝখানে ড্যারেন স্যামি এবং মিরাজ আছেন। তবে শেষের দিকে দুর্বল লাইনআপ চোখে পড়ার মত। ড্যারেন স্যামি যদি ২০ ওভার পর্যন্ত খেলে দিয়ে আসতে পারেন তাহলে অবশ্য চিন্তা নেই। তবে প্রতিদিন এমন নাও হতে পারে। সেক্ষেত্রে বোলিং ইউনিটের দায়িত্ব বেড়ে যাবে। তবে প্রথম ম্যাচে আবুল হাসানের ৫ উইকেট এবং মিরাজের নিয়মিত উইকেট পাওয়াটাও একটা সুসংবাদ।
 
অপরদিকে বরিশাল বুলজ এর রয়েছে দক্ষ ব্যাটিং ইউনিট। শাহরিয়ার নাফিজ, মুশফিকুর রহিম, থিসারা পেরেরা রয়েছেন দুর্দান্ত ফর্মে। শামসুর রহমান রয়েছেন জ্বলে ওঠার অপেক্ষায়। যদিও প্রথম ম্যাচে মুশফিক এবং নাফিজের অর্ধশতকের পরও হারতে হয়েছিলো। তবে বোলিং ইউনিটটা আরেকটু ধারালো করতে পারলে বরিশাল নিয়মিতই জয়ের দেখা পাবে। বোলিংএ বরিশালকে আশা দেখাচ্ছেন গত বিপিএলের স্পীডস্টার আবু হায়দার রনি, আল আমিন হোসেন এবং স্পিনার তাইজুল।
 
দিনশেষে পারফর্ম করাটাই আসল। রাজশাহী টিমের শক্তি নিয়ে কোন দ্বিমত নেই, তবে রাজশাহীর সমন্বয়হীনতার অভাবে ছন্দে থাকা বরিশাল চমক দেখাতেই পারে। তবে ম্যাচ হেলে আছে রাজশাহীর দিকে… টানটান উত্তেজনায় ভরে উঠুক ম্যাচের প্রতিটা সময়।
 
বরিশাল বুলসের স্কোয়াডঃ
বাংলাদেশি ক্রিকেটারঃ মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), শামসুল হক শুভ, শাহরিয়ার নাফিস, নাদিফ চৌধুরী,মুনির হোসেন,মেহেদী হাসান, আবু হায়দার রনি, আল আমিন হোসেন, কামরুল হাসান রাব্বী, তাইজুল ইসলাম এবং রুম্মান রায়েস।
বিদেশী ক্রিকেটারঃ ডেভিড মালান, দিলশান (শ্রীলঙ্কা), মুনাবীরা, জশুয়া কব, কার্লোস ব্রেথওয়েট (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), রায়াদ এমরিট, মোহাম্মাদ নেওয়াজ।
 
রাজশাহী কিংসের স্কোয়াডঃ
বাংলাদেশি ক্রিকেটারঃ সাব্বির রহমান, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি হাসান মিরাজ, মোমিনুল হক, ফরহাদ রেজা, নাজমুল হাসান অপু, রাকিবুল হাসান, আবুল হাসান রাজু, রনি তালুকদার, সালমান হোসেন, এবাদত সানি।
বিদেশী ক্রিকেটারঃ ড্যারেন স্যামি (ওয়েস্টইন্ডিজ/অধিনায়ক), মিলিন্ডা সিরিওয়ারদানা (শ্রীলঙ্কা), উপুল থারাঙ্গা (শ্রীলঙ্কা), মোহাম্মদ সামি (পাকিস্তান), সামিত পাটেল (ইংল্যান্ড), উমর আকমল (পাকিস্তান/ উইকেটকিপার)
 
পয়েন্ট টেবিলে দুই দলের অবস্থানঃ
রাজশাহী কিংসঃ দুই ম্যাচে ১ জয় এবং ১ হারে পয়েন্ট টেবিলে অবস্থান ৪ নম্বরে।
বরিশাল বুলসঃ দুই ম্যাচে ১ জয় এবং ১ হারে পয়েন্ট টেবিলে অবস্থান ৬ নম্বরে।

Leave a Reply