রোমাঞ্চকর চতুর্থ দিন

বাংলাদেশেরর শত তম টেস্টের চতুর্থ দিনে এসে যেনো নতুন রোমাঞ্চের আশা জাগাচ্ছে। পঞ্চম দিনের প্রথম সেশন তাই এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন।

কালকে দূর্দন্ত খেলতে থাকা করুনা রত্নে ও থারাঙ্গর শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি মাত্র তিন রান যোগ করতেই মেহেদি মিরাজের এক ম্যাজিক্যাল ডেলিভারি তে আউট হোন থারাঙ্গা। একই টেস্টে ২ইনিংসেই থারঙ্গাকে আউট করে মিরাজ।
কিন্তু তার পর পুরো সেশন টা রাজত্ব করে লংকান ব্যাটসম্যানরা করুনারত্নে ও কুশল মেন্ডিস মিলে করে ৮৬ রানের এক গুরুত্বপূর্ণ পার্টনারশীপ। তাদের কাধে ভর করেই লীড নেয় শ্রীলংকা

কিন্তু ২য় সেশনটা যেনো বাংলাদেশেরর জন্য আশীর্বাদ হয়ে আসে। প্রথমে মুস্তাফিজ ও পরে সাকিব মিলে ভেঙেদেয় লংকান মিডল অর্ডার। দলীয় ১৪৩ রানে মুস্তাফিজের বলে মুশফিকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন ৩৬ রান করা কুশল মেন্ডিস। ক্রিজে এসে থাকতে পারেননি দিনেশ চান্ডিমাল ও। আবারও সেই মুস্তাফিজ। মাত্র পাচ রান করে মুস্তাফিজের বলে মুশফিকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি। এবারের আঘাত হানে সাকিব আল হাসান। মাত্র সাত রান করা গুনারত্নেকে লেগ বিফোরের ফাদে ফেলে সাঝ ঘরে ফেরান তিনি। কিন্তু তখনো যে মুস্তাফিজের আরও ম্যাজিক বাকি ছিলো। পরের ওভারের শেষ বলে ডি সিলভাকে মুশফিকের হাতে ক্যাচ বানিয়ে প্যাভিলিয়নে পাঠান তিনি। কিন্তু অপর প্রান্ত আগলে রেখেছেন তখনো করুনারত্নে। ডিকওয়ালকে নিয়ে যখন বিপর্যয় সামলাতে যাবেন করুনা রত্নে তখন সাকিবের বলে মুশফিকের এক অসাধারন কেচে আউট হোন ডিকওয়াল। আর এর সাথে মুশফিক অর্জন করে ১০০ডিসমিসাল করার রেকর্ড । কিন্তু পরের সময়টা ভালোই সামাল দেয় ডিলরুয়ান পেরেরা আর করুনারত্নে।

২য় সেশন টা বাংলাদেশের হলে ৩য়টা যেনো শ্রীলংকার। করুনারত্নের সাথে থাকা পেরেরা যেনো হয়ে উঠেন চীনের প্রাচীর। দুজন মিলে ভালোই সামলাতে থাকে বাংলাদেশের বোলারদের। এর মধ্যে করুনারত্মে তুলে নেন নিজের ৫ম টেস্ট সেঞ্চুরি। কিন্তু দলীয় ২১৭ রানে সাকিব আল হাসানের বলে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার সময় তার নামের পাশে ছিলো করে ১২৬ রানের এক ঝকঝকে ইনিংস । যা দলের বিপদে অনেক প্রয়োজনীয়।
কিন্তু তখনো দমে যায়নি শ্রীলংকা । হেরাথ ও পেরেরা যেনো মাটি কামরে পরেছিলো। কিন্তু দলীয় ২৩৪ রানে তাইজুলের বলে লেগ বিফোরের ফাদেপরে আউট হয় হেরাথ। কিন্তু তখনো পেরেরা আগলে থাকে এক প্রান্ত।
দিন শেষে শ্রীলংকার ২৬৮ রান ৮উইকেটেরর বিনিময়ে। প্রথমেই সাকিবের বলে আম্পায়ারেরর ভুল ডিসিশনে জীবন পাওয়া পেরেরা ১২৬ বলে ২৬ ও লাকমাল ১৭বলে ১৬ রানে অপরাজিত ।

টেল এন্ডাররা যেনো বরাবরই বাংলাদেশের বোলারদের পরীক্ষা নেয়। তাদের এই শেষ দিকে আসা কিছু রান ই কাল বিপদে ফেলতে পারে বাংলাদেশ কে। কাল যদি অতি দ্রুত তাদের এই উইকেট গুলো ফেলেদিতে পারে তবে হয়ত এই টেস্টা বাংলাদেশের জেতা সম্ভব।
তবে কাল রোমাঞ্চোকর একটা দিন অপেক্ষা করছে এতে কোনো সন্দেহ নাই।

Leave a Reply