বাংলাদেশ ক্রিকেটের সমস্যা ও ভবিষ্যত

১. একটা ভালো দল কিভাবে হওয়া যায়? অথবা কথাটাকে আরেকটু অন্য ভাবে সাজানো যায়। একটা ভালো দল হবার জন্য দলে কি কি থাকা প্রয়োজন? কোন সন্দেহ নেই যে সবার আগে প্রয়োজন ট্যালেন্টেড খেলোয়াড়। কিন্তু শুধু ট্যালেন্টেড খেলোয়াড় দিয়ে সব কিছু অর্জন করা সম্ভব হয় না। দুনিয়ার সব দেশেই মোটামুটি ট্যালেন্টেড খেলোয়াড় রয়েছে।

শুভ জন্মদিন মিঃ ফিনিশার

১. ৪৩ ওভারে ১৭২ রানের টার্গেট এই যুগে তেমন বড় কিছু না। আজকাল টি২০ তেও এই রান কোন সমস্যা মনে করা হয় না। ১৯৯৫/৯৬ সালের প্রেক্ষাপটেও তেমন বড় কিছু ছিল না। কিন্তু অ্যামব্রোস আর ওয়ালসের মতো বোলাররা যেদিন আগুন জড়ায় সেদিন রান করা দূরে থাক, টিকে থাকাটাই চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়। সেই

শুভ জন্মদিন এক্সপ্রেস

১. যে কোন খেলাতেই গতি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়। আপনি প্রতিপক্ষের চেয়ে যত বেশী দ্রুত গতি সম্পন্ন হবেন ততটাই এগিয়ে যাবেন। এখন বিষয়টা নির্ভর করে খেলার ধরণের উপর। মনে করুন আপনি সাতার খেলছেন, সেখানে গতিটা সরাসরি রিলেটেড। আবার যদি দাবা খেলেন তাহলে আপনার বুদ্ধিমত্তার গতি গুরুত্বপূর্ণ। ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানদের জন্য গতির গুরুত্ব পরে

শুভ জন্মদিন কিং রিচার্ডস!

১. ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানদের স্ট্রাইক রেট বলতে আমরা কি বুঝি? বল প্রতি কত রান করেছে তার একটা হিসেব। কোন ব্যাটসম্যানের স্ট্রাইক রেট ১০০ এর অর্থ হচ্ছে সেই ব্যাটসম্যান ১০০ বল খেলে ১০০ রান করেছেন। ব্যাটসম্যানদের গড় বলতে আমরা কি বুঝি? একজন ব্যাটসম্যান প্রতি ইনিংসে কত রান করেছেন তার একটা হিসেব। এখন সচরাচর দেখা

শুভ জন্মদিন নীরব ঘাতক

একজন খেলোয়াড় মাত্রই বিশ্বকাপ জিতলেন, ১১ ম্যাচে ১৩.৭৩ গড়ে ২৬ টি উইকেট নিয়ে কাপ জয়ে অবদান রাখার সাথে সাথে টুর্নামেন্ট সেরা। অথচ প্রশ্ন শুনতে হচ্ছে , ‘এখনই কেন’? ম্যাকগ্রার উত্তরটাও সুন্দর ছিল, ‘এই প্রশ্নটা করবেন বলেই। আমি শুনতে চাই না আমাকে নিয়ে কেউ বলুক এখনো অবসর নিচ্ছে না কেন?’ বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি

ক্রুশিয়াল ম্যাচ – সর্বকালের সেরা নির্বাচনের গুরুত্বপূর্ণ মানদন্ড – দ্বিতীয় পর্বঃ

  ১. আগের পর্বে একটা সূত্র উল্লেখ করা ছিল। সেটা নিয়ে পরে ব্যাখ্যা করি। গত পর্বে পোষ্ট করার পর একটা প্রশ্ন এসেছিল। ‘ক্রুশ্যাল ম্যাচে স্কোর করা নাকি অর্ডিনারি ম্যাচে রেগুলার প্লেমেকিং’ – কোনটা বেশি মূল্যবান? প্রশ্নের মূল বক্তব্য আমি যতদূর বুঝে থাকি তা হচ্ছে ধারাবাহিকতা বেশী মূল্যবান নাকি অনেক ম্যাচ খারাপ করে শুধু

‘ক্রুশিয়াল ম্যাচ – সর্বকালের সেরা নির্ধারণের গুরুত্বপূর্ণ মানদন্ডঃ পর্ব ১’

১. সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান কে? ব্র্যাডম্যান, ভিভ রিচার্ডস, শচীন টেন্ডুলকার, ব্রায়ান লারা, গ্যারিফিল্ড সোবার্স, জ্যাক হবস – এমন কিছু নাম আপনার মাথায় আসবে। সর্বকালের সেরা ফুটবলার কে? পেলে, ম্যারাডোনা, ক্রুয়েফ, ডি স্টেফেনো, জিদান, মেসি – এরকম কিছু নাম আপনার মাথায় আসবে। প্রত্যেক গ্রেট খেলোয়াড়ের কিছু স্পেশাল দিক আছে আবার কিছু দূর্বল দিকও আছে।

শুভ জন্মদিন রিকি পন্টিং।

ক্রিকেটে বিরল কীর্তি কোনটি? বিষয়টা ব্যাখ্যা করার জন্য তিনটা কীর্তির কথা আগে একটু বলি। প্রথম কীর্তিঃ যে কোন একজন ক্রিকেটারের আজন্ম স্বপ্ন কোনটা? জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়া, যদি পরিধিটা একটু বাড়ানো হয় তাহলে সেটা হবে টেষ্ট দলে সুযোগ পাওয়া। যদি কোন ক্রিকেটার জাতীয় দলের হয়ে সব ভার্সনেই সুযোগ পায় তাহলে তো

ক্রিকেটের অধিনায়কেরা!

১. ‘অধিনায়ক’ – ক্রিকেটের খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা অংশ। সব দলীয় খেলাতেই একজন অধিনায়ক থাকে কিন্তু ক্রিকেটে অধিনায়কের গুরুত্ব যতখানি অন্য কোন খেলায় খুব সম্ভবত এতটা নেই। মাঠে থাকা অবস্থায় অধিনায়ককেই মূহুর্তের মধ্যে সিদ্ধান্ত নিতে হতে হয়। বোলিং পরিবর্তন, ব্যাটসম্যানের দূর্বলতা বুঝে ফিল্ডিং পরিবর্তন, অফ ফর্মে থাকা কোন খেলোয়াড়কে সমর্থন দেয়া, সব

মার্ভ হিউজ – ক্রিকেটের সুমো

মার্ভ হিউজ - ক্রিকেটের সুমো

স্বাস্থ্যটা ঠিক ফাষ্ট বোলার সুলভ ছিল না। উচ্চতাটা মানানসই হলেও (৬’ ৪”) একটু ওভার ওয়েট ছিলেন। ১৯৯৩ সালের অ্যাসেজ ট্যুরে যখন বল করতে শুরু করতেন তখন দর্শকেরা চিৎকার শুরু করতো ‘সুমো’ বলে। ট্রেড মার্ক গোফটা দেখে মনে হতো কোন স্কুলের রাগী হেড মাষ্টার বোধ হয় মাঠে তার পালিয়ে যাওয়া ছাত্রটাকে