হাতুড়াসিংহে, হোসে মৌরিনহো অব ক্রিকেট।

বছর আটেক আগের ঘটনা,অস্ট্রেলিয়ান ডমেস্টিক টিম নিউ সাউথ ওয়েলসের এক অখ্যাত শ্রীলঙ্কান কোচ হটাৎ করেই বলে বসলেন,তার টিমে অস্ট্রেলিয়ার সেরা ব্যাটসম্যান খেলে যার নাম স্টিভেন স্মিথ।

স্টিভেন স্মিথ, যিনি কিনা তৎকালীন অজি লেগ স্পিনার, খানিকটা ব্যাটিংও করে থাকেন, নিজেই হয়তো অবাক হয়েছিলেন এমন ঘোষণায়। এক অস্ট্রেলিয়ান সাংবাদিক তো বলে বসলেন, শুদ্ধ মারিজুয়ানায় টান না দিলে এমন দাবি করা সম্ভব না। মারিজুয়ানার স্বাদ সেই ভয়ংকর একগুয়ে শ্রীলঙ্কান নিয়েছিলেন কি না জানি না, তবে আট বছর পর সেই স্মিথ আইসিসি র‍্যাংকিং এ সর্বকালের সেরা দ্বিতীয় রেটিংধারী ব্যাটসম্যান এটা আমি জানি।

বাংলাদেশের জব হাতে নেয়ার পরপরই আলোচনায় আসেন হাতুড়াসিংহে, সাকিবের সাথে কথা কাটাকাটি হয়েছিল তার। বিতর্ক দিয়েই শুরু। তবে বিতর্কের মেঘ আর থাকেনি, সাফল্যের বর্ষণ শুরুর কারণে।

মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়া এক টিম নিয়ে রচিত হলো এক একটি মহাকাব্য তারই অধীনে। ফর্মহীন সত্যিকারের ‘কালা না পারা” তামিমকে রান স্কোরিং মেশিনে পরিবর্তন করা, লেফটি স্পিনার সমৃদ্ধ দেশে ফ্লাট ট্র্যাকে ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে চার পেসার খেলানোর হ্যাডম দেখানো, কিংবা নেট থেকে মুস্তাফিজের মত ইয়াংস্টারদের বিশ্ব ক্রিকেটে তারকা বানিয়ে দেয়া, কোনটা করেননি তিনি?

যারা ফুটবলে আগ্রহী হোসে মৌরিনহো নামটার সাথে পরিচিত। হোসে মৌরিনহো ভয়ংকর একগুয়ে, নিজ টিমে ‘ডিক্টেটর’। নিজের প্লেয়ারদের নিয়ে বড় বড় স্টেটমেন্ট দেয়ার জন্য পরিচিতি আছে তার। আমি মৌরিনহোর সাথে হাতুড়ের মিল খুজে পাই, যখন হাতুড়ে মিডিয়ার সামনে দাড়িয়ে অদম্য কন্ঠে বলে,

‘If they have concern about my bowlers, I have a concern about their (ICC) actions as well’

তার সব পরিকল্পনা হয়তো সাফল্যের আলো পায়নি তবে তিনি এই ব-দ্বীপের দেশের ক্রিকেটে যে ধরনের সফলতা এনে দিয়েছেন, বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা কোচদের ট্যাগটা তার নামের সাথেই লাগানো থাকবে।

Leave a Reply