সেই সাকিব এই সাকিব

 

সকিব আল হাসান, মি. ৭৫ । বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন। খেলেছেন পৃথিবীর সকল টি২০ লীগ । সামনেও খেলবেন। তেমনি নিজের দেশের টি২০ লীগও খেলেন । হয়েছেন প্রথম ২ আসরের ম্যান অফ দ্যা টুর্নামেন্ট। কেমন ছিলো সাকিবের প্রথম ২টি বিপিএল??

প্রথম আসরে খেলেছেন খুলনা রয়েল ব্যাঙ্গল এর হয়ে, ছিলেন অধিনায়ক। দলকে নিয়ে গিয়েছিলেন টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে । সেমিফাইনালে ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স এর কাছে ৯ রানে হেরে বাদ পরে তার দল। সাকিব নিজেই বলেছে সে চ্যালেঞ্জ নিয়ে খেলতে ভালোবাসে। তাই সেদিন ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স এর ১৯১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে মোটামুটি শক্তির দল নিয়েও টুর্নামেন্ট এর সবচেয়ে শক্তিশালী দলটার সাথে লড়ে যায় শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত। করেন ৪১ বলে অপরাজিত ৮৬ রানের ইনিংস । প্রথম টুর্নামেন্টে সে ২৮৮ রানের পাশাপাশি নেয় ১৫ উইকেট। দল ফাইনাল না খেলতে পরলেও তিনি পেয়ে যান ম্যান অফ দ্যা টুর্নামেন্ট।

২য় আসরেও সাকিব ছিলো তার নামের মতোই উজ্জ্বল। খেলেছেন ১ম বারের চ্যাম্পিয়ন দল ঢাকা গ্লাডিয়েটর্স এর হয়ে। সেবার ঢাকা কে চ্যাম্পিয়ন করতে বড় ভুমিকা ছিলো সাকিবের। করেছেন ৩২৯ রান তার সাথে ১৫ উইকেট। হয়েছেন ম্যান অফ দ্যা টুর্নামেন্ট।

২০১৫ সালে ২ বছর পর যখন আবার বিপিএল শুরু হলো তখন সবাই চেয়েছিলো সাকিবকে তাদের দলে নিতে। কিন্তু ভাগ্যের জোরে জিতে যায় রংপুর রাইডার্স। সকিব খেলেন রংপুর রাইডার্স এর হয়ে। বোলিং টা সাকিব সুলভ হলেও ব্যাটিংটা ঠিক যেনো মানায়নি তার সাথে। করেছেন ১৩৬ রান আর নিয়ে ছেন ১৮ উইকেট।

কিন্তু বিপিএল এর ৩ আসর মিলিয়ে সাকিব উইকেট শিকারে ২য় স্থানে আছে । তার উইকেট সংখ্যা ৪৮। তার উপরে থাকা ক্যাভিন কুপার এর উইকেট সংখ্যা ৪৯।আবার রান সংগ্রহের দিক দিয়ে সাকিব ৩য়। তার রান সংখ্যা ৭৪৫ রান। তার উপরে থাকা ২ জন মুশফিকুর রহিম ও ব্র্যাড হগ এর রান সংখ্যা যথাক্রমে ৮৩১ ও ৭৫৬ রান।

এবার সাকিব খেলবে ঢাকা ডায়নামাইটস এর হয়ে। কাগজে কলমে ভালো দল। আার সাকিব ও আছে তার ছন্দে। তিনি যে ফর্মে আছেন সেটার আভাস দিয়েছেন গত ইংল্যান্ড সিরিজে। আর ফর্মে থাকা সাকিব যে কত ভয়ংকর তার প্রতিপক্ষ ভালোই জানে । আর মজাদার বিপিএল এর জন্য ফর্মে থাকা সাকিবকে দেখতে চায় সবাই।

Leave a Reply