লংকানদের অনুপ্রেরণার উৎস ছিলেন নাম্বার ওয়ান সাকিব খান

গতকাল রাতেই অনেকটা নিশ্চিত ছিল প্লেয়িং একাদশে কোন পরিবর্তন আসছে না। শুভাগত হোম আর শুভাশিস রায় দুজনই ছিলেন তাই নির্ভার! অবসর সময়টুকু কিভাবে কাটাবেন তা নিয়ে চলছিল আলোচনা। হঠাৎ করেই মনে পরল রাত ১২ বাজলেই ঢালিউডের বিগেস্ট স্টার নাম্বার ওয়ান সাকিব খানের! কি আর করা, সাকিব খানের মুভি দেখেই সময় পার করার সিদ্ধান্ত নিলেন দুই ক্রিকেটার। ইয়া ঢিসুম, ঢিসুম এর উত্তেজনায় ভলিউমের কাঁটা ছিল একদম উঁচুতেই! লংকান ম্যানেজার রুমের পাশ দিয়ে যাবার সময় উঁচু ভলিউম পেয়ে বুঝার চেষ্টা করছিলেন আসলে কি হচ্ছে? এটা কি গেম প্ল্যানের কোন অংশ! ঠিক সেই সময় চলছিল সাকিব খানের সেই বিখ্যাত সংলাপ, “সুন্দরবনে শুধু বাঘই না সিংহও থাকে”!

এই সংলাপ কানে প্রবেশ করতেই মাথার ভিতর বেজে উঠল শত সহস্র নাগারার উচ্চধ্বনি! আর সাথে পেয়ে গেলেন কিভাবে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারদের পরাজিত করা যাবে তার সমাধান। রাতেই হোটেলে সবাইকে নিয়ে নতুন গেম প্ল্যান করলেন। যার ফল আমরা দেখতে পেলাম দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে।

প্রথম ম্যাচের মত ধানুস্কা এই ম্যাচেও ফ্লপ হলেও উপল থারাঙ্গা এবং কুশাল মেন্ডিস এর মধ্যে ১১১ রানের জুটি বিশাল রানের লক্ষ্যের দিকেই ইঙ্গিত করছিল। শেষ দিকে বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিং এর কারণে রানের চাকা থেমেছিল ৩১১ রানে! আজকের ম্যাচের প্রাপ্তি বলতে শুধুমাত্র তাসকিন আহমেদের হ্যাট্রিক! প্রথম ইনিংস এর পর বৃষ্টি নামলে চিন্তার ভাঁজ স্থায়ী রূপ নেয় বাংলাদেশ শিবিরে। ৫০ ওভারে ৩১২ রানের লক্ষ্যটা খুব একটা কিছু না হলেও বৃষ্টি আইনে নতুন টার্গেট অনেক বেশি কঠিন হয়ে যেত বাংলাদেশের জন্য। বৃষ্টির কারণে খেলা পণ্ড হবার কারণে অবশ্য আর কোন দুশ্চিন্তা করতে হয়নি।

টেস্ট সিরিজের মত ওয়ানডে ক্রিকেট সিরিজেও এখন আর পরাজয়ের কোন সম্ভাবনা রইল না বাংলাদেশের সামনে। সিরিজের শেষ ম্যাচে শ্রীলংকা জয়ী হলেও সিরিজ হারছে না বাংলাদেশ। যদিও র‍্যাংকিং পয়েন্ট এর জন্য শেষ ম্যাচ জয় করাটা বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

ম্যানিয়াক্স ডেস্ক
ক্রিকেট ভালোবাসি, কেননা বাংলাদেশকে ভালোবাসি।

Leave a Reply