এইবারের বিপিএল কি হতে যাচ্ছে সাইফুদ্দিনের বিপিএল?

এইবারের বিপিএল কি হতে যাচ্ছে সাইফুদ্দিনের বিপিএল?

বাংলাদেশ ক্রিকেটে বর্তমানে সাফল্য আর সাফল্য। দলে খেলার যোগ্য খেলোয়াড়ের সংখ্যা এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে কাকে ফেলে কাকে নিবে এরকম মধুর সমস্যায় পড়তে হয় নির্বাচকদের। কিন্তু তাও একটি খেলোয়াড়ের বড্ড অভাব বাংলাদেশের। তা হলো একজন পেস বোলিং অলরাউন্ডার।

সাউথ আফ্রিকার জ্যাক ক্যালিসের কথা তো সবাই জানে। কিভাবে তিনি দলকে একজন ব্যাটসম্যান ও ফাস্ট বোলার হিসেবে সাপোর্ট দিয়েছেন তা অবিশ্বাস্য। এছাড়াও বর্তমানে খেলতে থাকা খেলোয়াড়দের মধ্যে ইংল্যান্ডের বেন স্টক্স কিংবা নিউজিল্যান্ডের কোরি এন্ডারসনকে দেখা যায় এইভাবে দলকে সাহায্য করতে।

বাংলাদেশও এখন পর্যন্ত অনেকে আশার আলো দেখিয়েছেন কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা পূরন করতে পারেনি কেউ। প্রথমে আসেন মাশরাফি বিন মর্তুজা এরপর একে একে ফরহাদ রেজা থেকে শুরু করে জিয়াউর রহমান। মাশরাফি খেলার মাধ্যমে নিজেকে চিনিয়ে নিলেও ইঞ্জুরির কারনে শেষে বাধ্য হন ব্যাটিং ছেড়ে বোলিংয়ে মনযোগ দিতে। এছাড়া অন্যরা ঘরোয়া লীগে ভালো করে জাতীয় দলে এসে ব্যর্থ হন। তাই সেই ‘পেস বোলিং অলরাউন্ডার’ বাংলাদেশের অধরাই রয়ে যায়!

তবে বর্তমানে এই জায়গায় একজন বিশ্বমানের খেলোয়াড় পাবার কাছেই আছে বাংলাদেশ। সে খেলোয়াড় হলেন মোহাম্মাদ সাইফুদ্দিন। ফেনীর এই ছেলের ব্যাপারে বাংলাদেশের ক্রিকেট অনুরাগীরা কিছুটা হলেও জানেন অনুর্ধধ -১৯ বিশ্বকাপের মাধ্যমে। সেখানেই সকলে দেখে তার গতিময় সব ইয়র্কার ও ব্যাটিং নৈপুণ্য।

সাইফুদ্দিনের ক্যারিয়ারের শুরু টেপ টেনিস বলে খেলে। তাই ইয়র্কার দেওয়ায় তিনি বেশ ভালো। ওভারে টানা ৬টা বল ইয়োর্কারেই করতে পারেন তাও আবার ভালো গতিতে ! ব্যাপারটা নিজেই বলেছিলেন ক্রিকেটভিত্তিক জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইটকে।

ব্যাটিংটাও করেন বেশ ভালো। প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে আঠারো ম্যাচেই এই তরুন তুর্কির রয়েছে প্রায় ৩২ গড়ে চারটি অর্ধশতক! তাই অন্তত এইটা বলা যায় প্রয়োজনের সময় দলকে ব্যাট হাতে ভালো সাপোর্ট দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে তার!

এইবার বিপিএলে এই উদীয়মান তারকা খেলছেন মাশরাফি বিন মতুর্জা’র দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সে। নিজেকে বড় মঞ্চে প্রমান করার এই যেনো একটি সুযোগ! দেখা যাক তিনি নিজের প্রতিভা অনুযায়ী খেলা দেখিয়ে কেড়ে নিতে পারেন কিনা সকলের নজর। পারলে এটি হতেই পারে ‘সাইফুদ্দিনের বিপিএল’!

Leave a Reply